ঘুরে আসুন রাঙ্গুনিয়ার “চিড়িঙ্গা আইল্যান্ড”

0


Published : ২৬.১০.২০১৮ ০৯:৩০ পূর্বাহ্ণ BdST


রাসেল মাহমুদ


পাহাড়, নদী, আর দ্বীপের সংমিশ্রণে আকর্ষণীয় সম্ভাবনাময় পর্যটন স্পট চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার চিড়িঙ্গা আইল্যান্ড। শুধু পাহাড় নদীই নয়, এই স্থানে এলে দূর থেকে মনে হবে বিশাল বিশাল গাছ। লেকের পানির মতো স্বচ্ছ জলরাশি। সন্ধ্যার আগে দ্বীপটির গাছের ফাঁক দিয়ে সূর্যাস্তের দৃশ্য যে কারোরই চোখ জুড়িয়ে যাবে।

দ্বীপের একদিকে রয়েছে পাহাড় আর অন্যদিকে সমতল এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে শাখা খাল চিড়িঙ্গা খাল। নদীর পাড় থেকে দাড়িয়ে পাহাড়ের ঘন আর সুবিশাল গাছের আড়ালে লুকিয়ে থাকা নানা রকম পাহাড়ী জীববৈচিত্র্য দর্শনার্থীদের মুগ্ধ করবেই। প্রাকৃতিভাবে সৃষ্ট এই দ্বীপটি কর্ণফুলী নদীর সখ্যতার এক চমৎকার দৃশ্য। স্থানীয় ভাষায় চিড়িয়া আইল্যান্ড নামে জায়গাটি বেশ পরিচিত। পাহাড়, নদী, খাল, দ্বীপ, ঘন জঙ্গলের সাথে নানা জীববৈচিত্র্য নিয়ে প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট চমৎকার এই স্থানটি আকর্ষনীয় পর্যটন স্পট হতে পারে।

চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের উপজেলার গোডাউন ব্রীজ দিয়ে সরফভাটা ইউনিয়ন হয়ে ৮ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিম অংশ দিয়ে কর্ণফুলি নদীর মাঝে এই দ্বীপটি। চট্টগ্রাম কালুরঘাট হয়ে বোয়ালখালী হয়ে কর্ণফুলী নদী পথে রাঙ্গুনিয়ার প্রবেশ এই দ্বীপটি।

সাধারণত যেসব পর্যটন স্পট দেখা যায় সেগুলো কৃত্রিমভাবে বানানো। এই স্পটটি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট বনজ সম্পদ ও জীববৈচিত্র্যে ভরপুর একটি দর্শনীয় স্থান। এখানে ভোরে ও সন্ধ্যায় গাছে গাছে প্রচুর বানর, হনুমান দেখা যায়। এছাড়াও ক্ষুদ্র দ্বীপটিকে চতুর্দিকে গাইডওয়াল নির্মাণ করে রক্ষাবেক্ষণ করা সহ সামান্য উদ্যোগ নিলেই এখানেই গড়ে উঠবে দেশের অন্যতম আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র। নদীপথে কাপ্তাই যাওয়ার পথে এই স্থানটিতে প্রতিদিন প্রচুর দর্শনার্থী আসে।

দ্বীপ এলাকাটি একসময় মূল ভূখন্ডের সাথে ছিল। নদী প্রবাহের কারণে পানির স্রোতে এটি মূল ভূখন্ড থেকে আলাদা হয়ে গিয়েছে। এই স্থানটির প্রাকৃতিক দৃশ্যকে কাজে লাগিয়ে একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা হলে সরকার প্রচুর রাজস্ব আয়ের সুযোগ পাবে।’

চিড়িয়ার পাহাড় আর দ্বীপ কেন্দ্রিক প্রাকৃতিক দৃশ্য যে কাউকেই মুগ্ধ করবে। কাপ্তাই যাওয়ার পথে অনেক পর্যটক এই স্থানের দৃশ্য দেখে উপভোগ করতে এখানে নেমে পড়ে। সরফভাটা দিয়ে নির্মাণাধীন বোয়ালখালী-ভান্ডারজুড়ি-সরফভাটা সড়ক হওয়ার ফলে সরফভাটা দিয়ে কক্সবাজার, বান্দরবান সহ বিভিন্ন যোগাযোগ সহজলভ্য হচ্ছে। এরপাশাপাশি এটাকে পর্যটন স্পট ঘোষণা করা হলে রাঙ্গুনিয়া নয় শুধু, দেশের অনেক বড় বড় পর্যটন কেন্দ্র এটির সৌন্দর্যের কাছে হার মানবে।

আপনার মন্তব্য :

Please enter your comment!
Please enter your name here