প্রতিযোগিতা কমিশনকে আরও শক্তিশালি করতে উদ্যোগ প্রয়োজনঃ ড. আতিউর রহমান

0


Published : ১১.০৩.২০১৯ ১০:১২ পূর্বাহ্ণ BdST

“বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলো প্রয়োজনিয় গবেষণা ও এডভোকেসি সহায়তা দিয়ে এই প্রতিষ্ঠানটিকে একটি শক্তিশালি রেগুলেটর হিসেবে দাঁড় করাতে পারে। কারণ শক্তিশালি ও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য রেগুলেটর বা নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠানের বিস্তারিত তথ্য এবং কৌশলগত নীতি উপদেশের দরকার হয়।” বলেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর এবং উন্নয়ন সমন্বয়ের সভাপতি অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান।


‘কম্পিটিশন পলিসি এন্ড ইনক্লুসিভ ডেভেলপমেন্ট’ শীর্ষক এক সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন আয়োজিত এই সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় বাণিজ্য মন্ত্রী জনাব টিপু মুন্সী। এফবিসিসিআই-এর সভাপতি শরিফুল ইসলাম মহিউদ্দিনও সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাক সেমিনারে মূল নিবন্ধ উপস্থাপন করেন এবং এর উপর আলোচনা করেন ড. জামালউদ্দিন এফসিএ, ড. মুজিবুর রহমান এবং জনাব মনজুর আহমেদ।

ড. আতিউর আরও বলেন যে, একটি কার্যকর প্রতিযোগিতা কমিশন উৎপাদনকারি ও ভোক্তা উভয়ের জন্যই সুফল বয়ে আনতে পারে। এই প্রতিষ্ঠান একদিকে বড় বড় উৎপাদনকারি অথবা বাজারজাতকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিযোগিতা-বিরোধি আচরণ থেকে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের রক্ষা করার মাধ্যমে নতুন উদ্যোক্তা বিকাশের যথাযথ পরিবেশ নিশ্চিত করতে পারে। অন্যদিকে বাজারে পণ্য সরবরাহকারির সংখ্যার বৃদ্ধি নিশ্চিত করার মাধ্যমে লাগামহীন দামের দৌরাত্ম থেকে সাধারণ ভোক্তাদের রক্ষা করতে পারে।

আমাদের পরিবহন খাত ও চালের বাজারে এমন কার্টেল বা যোগসাজসের দুঃখজনক বাস্তবতা বিদ্যমান। তাঁর মতে বিভিন্ন ধরনের সিন্ডিকেটের উপস্থিতির কারণে প্রায়ই সাধারণ ভোক্তারা কৃত্রিমভাবে বর্ধিত দামে পণ্য কিনতে বাধ্য হন। কিন্তু উৎপাদনকারি কিংবা সরবরাহকারিদের মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগিতা নিশ্চিত করা গেলে বিভিন্ন পণ্য ও সেবা যৌক্তিক দামে পেতে পারেন ক্রেতারা। আর এর ফলে ভোক্তা সাধারণের কল্যাণ নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি দারিদ্র্য নিরসন হবে।

ড. আতিউর আরও বলেন যে, প্রতিযোগিতা কমিশন দারিদ্র্য নিরসন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা, জ্বালানী এবং পানি ও স্যানিটেশন সংশ্লিষ্ট এসডিজিগুলো অর্জনেও বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে।

আপনার মন্তব্য :

Please enter your comment!
Please enter your name here