স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির সিদ্ধেশরী ক্যাম্পাসে “ইনাগুরেশন অব বিজনেস ফোরাম”

0


Published : ০৫.০২.২০১৯ ০১:৪২ অপরাহ্ণ BdST

মাইনুল ইসলাম, স্টামফোর্ড প্রতিনিধিঃ গত ২ ফেব্রুয়ারি, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ” ইনাগুরেশন অব বিজনেস ফোরাম” শিরোনাম অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্টামফোর্ড সিদ্ধেশরী ক্যাম্পাসের বিজনেস ফোরামের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়।


অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন – ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এস এম ইলিয়াস মিরণ,স্টিয়ারিং কমিটির প্রধান ফারাহনাজ ফিরোজ, বিজনেস ডিপার্টমেন্টের প্রধান প্রফেসর ডা. জামাল উদ্দিন আহমেদ, স্টুডেন্ট উপদেষ্টা মিসেস রেহেনা আক্তার, বিজনেস ডিপার্টমেন্টের কো-অর্ডিনেটর নাইম জালাল উদ্দিন আহমেদ, বিজনেস ফোরামের কনভেনর ইতি লায়লা কাজী, বিজনেস ফোরামের কো- কনভেনর আহসান কবির রুবেল।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজনেস ডিপার্টমেন্টের সকল শিক্ষক- শিক্ষিকাবৃন্দ, বিজনেস ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা কমিটি সদস্য, বর্তমান কমিটি সদস্য এবং রেজিস্টার সকল শিক্ষার্থীরা।

শুরুতে কোরআন তেলওয়াত, জাতীয় সঙ্গীত এবং স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত এ কে এম হান্নান ফিরোজ স্যারকে স্মরণ করে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়।এরপরে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দরা তাদের মূল্যবান মোটিভেশনাল বক্তব্য প্রদান করেন৷

ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এস এম ইলিয়াস মিরণ বলেন – “প্রতিটি ডিপার্টমেন্টেরই একটি করে নিজস্ব ফোরাম বা সংগঠন থাকা উচিৎ কেননা এতে করে নিজের ডিপার্টমেন্ট কে এবং সেইসাথে ডিপার্টমেন্ট রিলেটেড কাজ গুলোকে খুব ভালো ভাবে জানা যায়৷”

স্টিয়ারিং কমিটির প্রধান ফারাহনাজ ফিরোজ বলেন- “একটি শিক্ষার্থীর বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশুনা করা মানে তিনি উচ্চতর শিক্ষাগ্রহণ করেন কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালের সংগঠন বা বাইরের সংগঠনের কাজ করা মানে তিনি কাকে কিভাবে শ্রদ্ধা বা সম্মান করে হয় সেটার জ্ঞান লাভ করেন৷”

বিজনেস ডিপার্টমেন্টের প্রধান প্রফেসর ডা. জামাল উদ্দিন আহমেদ স্যার বলেন- ” এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকাল থেকে আমি আছি। আমার ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীরা তাদের পড়াশুনার পাশাপাশি ঐক্যবদ্ধভাবে বিভিন্ন কাজের সাথে অংশগ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মান উজ্জ্বল করতেছে তার জন্য আমি খুবই আনন্দিত”

স্টুডেন্ট উপদেষ্টা মিসেস রেহেনা আক্তার বলেন- প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণ হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর আর তাদের প্রাণভোমর হলো তাদের ঐক্যবদ্ধ কার্যক্রম। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ফোরামই তার দৃষ্টান্তর উদাহরণ। “

বিজনেস ডিপার্টমেন্টের কো- অর্ডিনেটর নাইম জালাল উদ্দিন বলেন – পড়াশুনার পাশাপাশি তার শিক্ষার্থীদের এমন একটি ফোরামের খুব প্রয়োজন ছিল বলে তিনি মনে করেন। তিনি ফোরামের সঙ্গে থেকে ফোরামের সদস্যের সবসময় সহযোগিতা করবেন “

বিজনেস ফোরামের কনভেনর ইতি লায়লা কাজী বলেন- “নতুন ফোরামের সকল নিয়মকানুন, পড়াশুনায় যেন কোন সমস্যা না হয় সেই দিকে খেয়াল রেখে শিক্ষার্থীদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে সার্বক্ষনিক সহযোগিতায় তিনি থাকবেন “

বিজনেস ফোরামের কো- কনভেনর আহসান কবির রুবেল বলেন – বিজনেস শিক্ষার্থীদের মধ্য যে নিজের প্রতি যে আত্মবিশ্বাস আছে তাকে জাগিয়ে তুলতে সাহায্য করবে বিজনেস ফোরাম।

এর পরে ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা কমিটির সদস্যবৃন্দদের সনদ প্রদান করে সম্মানিত করা হয় এবং সেই সাথে নতুন কমিটিকে বরণ করে নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, স্টমফোর্ড ক্লাব ফেয়ার ২০১৮ তে স্টামফোর্ড বিজনেস ফোরামের যাত্রা শুরু হলেও এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিজনেস ফোরামের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়৷

সর্বশেষে নিবন্ধিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে কুইজ প্রতিযোগিতা, কুইজ বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।ফোরামের আগামী ১ বছরের কার্ক্রমের তালিকা প্রকাশ করা এবং বর্তমান কমিটির কো-অর্ডিনেটরের সমাপনী বক্তবের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়৷

সমাপনী বক্তবে নতুন কো-অর্ডিনেটর ইয়াসির আরাফাত বলেন- “স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির বিজনেস ডিপার্টমেন্টের স্টুডেন্টদের লেখাপড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন এক্সট্রা কারিকুলাম অ্যাক্টিভিটিসে যুক্ত করার মাধ্যমে কিভাবে বর্তমান বিজনেস ও জব মার্কেটে পারফেক্ট কম্পিটিটর হিসেবে তৈরি করা যায় সেটি মূলত বিজনেস ফোরামের প্রধান কাজ।আর বিজনেস ডিপার্টমেন্ট কে আরো কিভাবে স্মার্ট ডিপার্টমেন্টে পরিনত করা যায় সেই লক্ষে সকলের সহযোগিতা চেয়ে তার বক্তব্য শেষ করেন।”

আপনার মন্তব্য :

Please enter your comment!
Please enter your name here