স্টার্ট-আপ উদ্যোগগুলো সফল করে তুলতে অ্যাঞ্জেল ক্যাপিটালের সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবেঃ ড. আতিউর রহমান

0


Published : ২১.০২.২০১৯ ১২:৫৭ অপরাহ্ণ BdST

“নিত্য-নতুন প্রযুক্তির কল্যাণে বাংলাদেশের স্টার্ট-আপগুলোর জন্য ব্যাপক আশার ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। জনসংখ্যার বড় অংশ তরুণ হওয়া এবং উচ্চ জনসংখ্যার ঘনত্ব এ দেশের উদীয়মান উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ সহায়ক হচ্ছে। অ্যাঞ্জেল ক্যাপিটাল এবং অন্যান্য সামাজিক দায়বদ্ধ মূলধন প্রবাহের মাধ্যমে স্টার্ট-আপগুলো অর্থায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা যেতে পারে।”- বলেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ও উন্নয়ন সমন্বয়ের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান।


২০ ফেব্রুয়ারি  ধানমন্ডির ইএমকে সেন্টারে ইয়ুথ স্কুল ফর সোশ্যাল এন্টারপ্রেনারস-এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘ফাইনান্সিং স্টার্ট-আপস’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বিভিন্ন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে আসা উদ্যোমি তরুণ উদ্যোক্তারা এই সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

ড. আতিউর আরও বলেন যে, বড় বড় কর্পোরেশনের অনেক সাবেক কর্মকর্তা আছেন যারা অ্যাঞ্জেল ক্যাপিটালিস্ট হিসেবে উদীয়মান স্টার্ট-আপগুলোতে বিনিয়োগ করে সেগুলোতে অংশীদার হতে পারেন। তাদের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য দারুণ সহায়ক হতে পারে।

এসব স্টার্ট-আপের অংশিদার হওয়ার মতো যথেষ্ট অর্থ তাদের আছে, তারা এমন কি এসব কোম্পানির পর্ষদে বসেও তরুণ উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করতে পারেন। এই অ্যাঞ্জেল ক্যাপিটালিস্টরা যেন এগিয়ে আসেন সে জন্য একটি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এমন অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের যুক্ত হতে দেখলে ব্যাংকিং খাতও নিশ্চয়ই স্টার্ট-আপগুলো অর্থায়নে এগিয়ে আসবে। তুলনামূলক বড় স্টার্টআপগুলো অর্থায়নের জন্য ভেনচার ক্যাপিটালগুলোকেও যুক্ত হতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেন স্টার্ট-আপ গড়ে তোলার জন্য ইনকিউবেশন সেন্টার পরিচালনা করতে পারে সে জন্য সরকারকে প্রয়োজনিয় গবেষণা ও উন্নয়ন তহবিল সরবরাহ করতে হবে।

আপনার মন্তব্য :

Please enter your comment!
Please enter your name here